1. admin@www.rangamatipratidin.com : রাঙ্গামাটি প্রতিদিন :
শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ০২:২৬ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
নানিয়ারচর উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা পরিষদের আয়োজিত বিদায় এবং বরণ অনুষ্ঠান আসন্ন শারদীয় দূর্গাপূজা উপলক্ষে,উপজেলা প্রশাসনের মত-বিনিময় সভা। নানিয়ারচরে উন্নয়ন মূলক কাজের শুভ উদ্বোধন করলেন জেলা পরিষদ সদস্য ইলিপন চাকমা নানিয়ারচরে জাতীয় উৎপাদনশীলতা দিবস-২১ পালিত নানিয়ারচরে মহিলা কাবাডি প্রশিক্ষণ এর সমাপনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত বিদ্যালয়ের প্রথম দিনে পরিদর্শন করলেন: নানিয়ারচর ইউএনও নানিয়ারচরে উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা পরিষদের মাসিক সভা অনুষ্ঠিত নানিয়ারচর উপজেলা ক্রীড়া সংস্থা’র দায়িত্বে পরিবর্তন নানিয়ারচরে জেলা পরিষদ সদস্য ইলিপন চাকমা’র সহায়তা প্রদান নানিয়ারচরে আওয়ামী লীগের আয়োজিত ১৫ আগস্টের দলীয় কর্মসূচি

যাদের পরিশ্রমে স্বপ্নের চেঙ্গী সেতু আজ দৃশ্যমান

নিউজ ডেক্সঃ
  • প্রকাশিত: শনিবার, ২৪ এপ্রিল, ২০২১
  • ১৪৭ বার পড়া হয়েছে

নানিয়ারচর বাসীর স্বপ্নের সেতু আজ দৃশ্যমান।
অল্প কিছুদিনের মধ্যেই আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধনের মাধ্যমে উন্মুক্ত করে দেয়া হবে এই সেতু।

পাহাড়ের বুকে এটাই সবচেয়ে দীর্ঘতম সেতু।
২০১৭ সালের মাঝামাঝি সময়ে এই সেতুর নির্মাণ কাজের সূচনা হয়।
গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সরক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি
নানিয়ারচর উপজেলায় এসে সরজমিনেে পরিদর্শন করে এই সেতুর ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন।
তারপর থেকে শুরু হয় সেতুটির কাজ।

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর চট্টগ্রাম ২৪ ইসিবির মনিটরিংয়ে
সেতুর কাজ
অবশেষে সমাপ্ত হয় ২০২১ সালের প্রথম দিকে।
সেতুটির প্রথম ধাপে ১৫৭ কোটি টাকা বরাদ্দ ধরা হলেও
কাজের পরিধি বৃদ্ধি পাওয়ায় এবং রাস্তা সংস্কার সহ প্রায় ২৫০ কোটি টাকায় গিয়ে পৌঁছায়।

এই সেতুটি উদ্বোধন হলে নানিয়ারচর উপজেলার পুরো চিত্র পাল্টে যাবে।
সংযোগ সৃষ্টি হবে লংগদু,বাঘাইছড়ি,সাজেক,দীঘিনালা,খাগড়াছড়ির আশপাশের উপজেলার সাথে।
এছাড়াও ঢাকা,চট্টগ্রাম ও রাঙ্গামাটির সাথেও এখন সরাসরি সরক যোগাযোগ সৃষ্টি হয়েছে।

মানুষ এখন সরাসরি তাদের প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র,মালামাল ও পণ্য রপ্তানি সহ যাবতীয় কাজ এখন এই সেতুর মাধ্যমে সুফল ভোগ করছে।

এছাড়াও এখন নানিয়ারচর থেকে কোন রোগী নিয়ে যেতে আর বিড়ম্বনা পোহাতে হয়না।
সামাজিক অনুষ্ঠান,সরকারি কর্মসূচি বা রাজনৈতিক সভা যে কোন কিছু এখন খুব সহজেই করা যায় এই সেতুর কারণে।

রাস্তার কাজটিও সম্পন্ন হলে সংযোগ সৃষ্টি হবে অনান্য উপজেলার সাথে।
তখন বাড়বে আত্মীয়তা বাড়বে ব্যবসায়ীক লেনদেন।

মনিকো কোম্পানি নামক একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান এই সেতুটির কাজ করেন।
বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ইঞ্জিনিয়ার বিভাগের তত্তাবধানে
সেতুটির কাজ সম্পন্ন হয়।
খুবই দৃষ্টিনন্দন হওয়ায় প্রতিদিন শতশত মানুষ ভীর জমায় সেতুটিতে।
দূরদূরান্ত থেকেও অনেকে পরিবার পরিজন নিয়ে আসেন সেতুটি দেখতে।
রাঙ্গামাটি,বান্দরবান ও খাগড়াছড়ির বুকে এটাই সবচেয়ে দীর্ঘতম সেতু।
যার নাম নানিয়ারচর চেঙ্গী সেতু।

তবে অনেকের দাবী উঠেছে এই সেতুটির নাম বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সি আব্দুর রউফ এর নামে নামকরণ করার জন্য।
কারণ,এই নানিয়ারচর উপজেলায় শায়িত আছেন একজন বীরশ্রেষ্ট।
যাদের বীরত্বের কারণে আজ স্বাধীন দেশ, স্বাধীন রাষ্ট্র।
সেই সাথে ধন্য এই নানিয়ারচর উপজেলা।

ইতিমধ্যে বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় এই সেতুর নামকরণ নিয়ে একাধিক কথা বলা হলেও,
সুনির্দিষ্ট কোন নামকরণ এখনো করা হয়নি।
সেতুর দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলে জানা যায় এটি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা উদ্বোধন করবেন।
এবং তিনিই সঠিক নামকরণ করে এটি আগামী অল্প কিছুদিনের মধ্যেই আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হবে।

সেতুর কাজ শেষ, এখন কেবল রাস্তার কাজ শেষ হলেই
সুফল ভোগ করবে নানিয়ারচরবাসী।
সেতুটি আজ স্বপ্ন দেখাচ্ছে নানিয়ারচরবাসীকে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন